News Article

ক্রোমার কাঁধে ভর করে ৩ পয়েন্ট নিয়েই শুরু হলো মোহনবাগানের কোলকাতা লীগ অভিজান!

Written by: Raktim Banik

Advertisement

নৈশালোকে নিজেদের ঘরের মাঠে সার্দান সমিতিকে ৩-০ গোলে হারিয়ে লীগ অভিযান শুরু করলো শংকরলাল চক্রবর্তীর মোহনবাগান দল। ম্যাচের গোলদাতা ক্রোমা আগোগো, আজারুদ্দিন মল্লিক এবং ডি সিলভা!

আজ কোলকাতা ফুটবল লীগে মোহনবাগান মাঠে লড়াই ছিল লীগের সব থেকে শক্তিশালী দল মোহনবাগান বনাম মাত্র ৩ দিনের প্রাক্টিসে লীগে অংশগ্রহণ করা তারকাবিহীন সার্দান সমিতি! এই ম্যাচ যে সহজেই জিতবে মোহনবাগান তা একজন ক্ষুদে মোহনবাগান সমর্থকও জানতেন, তবে প্রথমার্ধে যে দারুন ফুটবল খেলে মোহনবাগানকে আটকে রাখবে সার্দান সমিতি সেটা কেউ ভাবেননি। তবে দ্বিতীয়ার্ধে মোহনবাগানের বিদেশী আনসুমান ক্রোমা স্বমহিমায় ম্যাচে সক্রিয় হতেই ম্যাচ থেকে হারিয়ে গেল সার্দান, দ্বিতীয়ার্ধে ৩ গোলের সাথে ৩-০ গোলে সার্দান সমিতিকে হারিয়ে নিজেদের লীগ অভিজান শুরু করল শংকরলাল চক্রবর্তীর দল!

এতদিন পর্যন্ত এই টুর্নামেন্টটিকে কেবল মাত্র নিয়মরক্ষার টুর্নামেন্ট হিসেবেই দেখতেন মোহনবাগান কর্মকর্তারা নিজেদের একাডেমি এর প্লেয়ার এবং নাম মাত্র বিদেশিদের দিয়েই পুরো সিফএল চালিয়ে দিতেন তারা! তবে এখন বদলেছে সময়, বদলেছে মানসিকতা আর আগের বছর ট্রফিলেস থাকার পরে টনক নড়েছে মোহনবাগান কর্মকর্তাদের, তারা এইবার সিএফএলকে কতটা গুরুত্ত্ব দিয়েছেন তা বোঝা গেছে তাদের দলগঠনেই। শুধু কর্তারাই নন, প্লেয়াররাও যে কতটা মরিয়া তা দেখা গেল আজ তাদের দ্বিতীয়ার্ধের খেলাতেও!

আজ গঙ্গার ধারে মোহনবাগান মাঠে ম্যাচ শুরু হলে প্রথমার্ধে এক অদম্য জেদ লক্ষ করা যায় সার্দানের প্লেয়ারদের মধ্যে, মাঠে তারা এক ইঞ্চিও জমি ছাড়েননি প্রতিপক্ষকে! ম্যাচের শুরুর বাশি বাজতেই আক্রমন শুরু করে দুই দলই, ৫ মিনিটের মধ্যেই ময়দানের বহু যুদ্ধের ঘোড়া রাকেশ মাসির দুরন্ত একটা কর্নার বাচিয়ে দেন শিল্টন পাল, ঠিক তার মিনিট দশেক বাদেই আবু বক্করের আর একটি আক্রমন প্রতিহত হয় শিল্টনের হাতে। এরপরে ২০ মিনিটে ক্রোমাকে অবৈধ্য ভাবে বাধা দেওয়া হলে ফ্রিকিক পায় মোহনবাগান, বাচিয়ে দেন সার্দান গোলরক্ষক ভাস্কর! এরপরে আক্রমন প্রতিআক্রমনে চলতে থাকা খেলা, যদিও ফলাফলে কোনও পরিবর্তন হয়নি! এরই মাঝে দুই দলের তৈরী করা কয়েকটি ভাল সুযোগের কোনওটি প্রতিহত হয় ডিফেন্স বা লাস্ট লাইন অফ ডিফেন্সে তো কোনটি থেকে কর্নার আদায় করতে সক্ষম হয় আক্রমনকারী দল! প্রথমার্ধের খেলা শেষ হওয়ার দুই মিনিট আগে নিজেদের মধ্যে বিবাদে জড়িয়ে হলুদ কার্ড দেখেন মোহনবাগানের ক্রোমা এবং সার্দান এর দিপঙ্কর রায়!

এরপর নৈশালোকের আলোয় দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরু হলে জ্বলে ওঠেন মোহন খেলোয়াড়েরাও, ক্রোমার নেতৃত্বে শুরু থেকেই মুহুর্মুহ আক্রমনের ঝড় তোলে মোহনবাগান। ৫২ মিনিটে ক্রোমার একটি দুর্দান্ত শট ভাস্কর কর্নারের বিনিময়ে সেভ করলে, অরিজিত এর সেই কর্নার থেকেই মোহনবাগানকে ম্যাচে ১-০ লিড দেন ক্রোমা। এরপরে সবুজ মেরুন জার্সিধারীরা মাঝমাঠে কতৃত্ব দেখাতে শুরু করলে আস্তে আস্তে খেলা থেকে হারিয়ে যায় সার্দান সমিতি, এরপরে ৭০ মিনিটে মোহনবাগান এর হয়ে দ্বিতীয় গোল করেন তরুন আজারুদ্দিন মল্লিক! ব্যাস তারপরে পুরোপুরি খেই হারিয়ে ফেলে হেমন্ত ডোরা এর সার্দান! ম্যাচ শেষ হওয়ার ৭ মিনিট আগে সেই অরিজিতের কর্নার থেকেই ম্যাচের ফলাফল ৩-০ করে মোহনবাগান এর জয় নিশ্চিত করেন পরিবর্ত খেলোয়াড় ডি সিলভা! এর পরে অতিরিক্ত সময়ের ২ মিনিটে সার্দান সমিতি একটি পেনাল্টি পেলেও তা কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয় তারা, আবু বুক্কারের লক্ষভ্রষ্ট শট উড়ে যায় তিনকাঠির উপর দিয়ে! এরপরে ম্যাচ রেফারী রঞ্জিত বক্সি শেষ বাঁশী বাজিয়ে ম্যাচের সমাপ্তি ঘটান, ম্যাচের সেরা নির্বাচিত হন আনসুমান ক্রোমা আগোগো!



Published: Mon Aug 14, 2017 08:55 PM IST

Advertisement

Welcome to Khel Now!