অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি, ফেডারেশন কাপ খেলে অর্নব মন্ডল, মহম্মদ রফিক এবং নারায়ণ দাশের মত জাতীয় দলের ফুটবলারদের ফিরতে হল জেনারেল কামড়ায় কোন রিজার্ভেশন ছাড়াই বাথরুমের পাশে দাড়িয়ে বা বসে. . .

সোমবার সকালের কটক স্টেশন সাক্ষী থাকল এক লজ্জাজনক দৃশ্যের যখন ইস্টবেঙ্গল এর তিন ভারতীয় জাতীয় দলের ফুটবলার নিজেদের কিট ব্যাগ নিয়ে উঠলেন হাওড়াগামী জন শতাব্দি এক্সপ্রেসের জেনারেল বগিতে, তাঁদের ছিল না রিসার্ভেশান ফলে বাথরুমের সামনের সিটে বসেই বা দাঁড়িয়ে তাদেরকে আসতে হল কোলকাতায়!

 

আগে একটা সময় ছিল যখন এতটা বানিজ্যকরন ঘটেনি ভারতীয় ফুটবলের, সে বহু বছর আগেকার কথা তখন ফুটবলার এমনকি ক্রিকেটারাও যাতায়ত করতেন ভারতীয় রেলে কিন্তু অবশ্যই তাদের রিজার্ভেশন থাকত! এখন সময় অনেক বদলেছে বানিজ্যিকরন ঘটেছে ভারতীয় ফুটবলের‍, বাজেট বেড়েছে দলগুলির, এসেছে বিদেশি লগ্নী এবং লেগেছে আধুনিকতার ছোঁয়া!

 

 

এখন কোন জুনিয়র টুর্নামেন্ট বা দ্বিতীয় ডিভিশন আই লিগ খেলতেও ছোট দলগুলি বিমানেই যাতায়াত করে। সেখানে ইস্টবেঙ্গল এর মত প্রথম সারির দলের খেলোয়াড়দের ট্রেনে রিসার্ভেশান ছাড়া জেনারেল কামড়ায় যাতায়াতের ঘটনাকে স্রেফ লজ্জাজনক বললেও কম বলা হয়, তাও একটা টুর্নামেন্টে টানা ৫ টি ম্যাচ খেলার পরে যার শেষ ম্যাচ ছিল কালকেই তাও আবার ডার্বি ম্যাচ চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মোহনবাগান এর বিরুদ্ধে!

এই ছবি গুলি সকালে ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে যায় যাতে দেখা যাচ্ছে একটিতে স্টেশনে কিটব্যাগ নিয়ে হাটছেন ৩ জাতীয় দলের ফুটবলার, আর একটিতে দেখা যাচ্ছে বাথরুমের সামনে বসে নারায়ন দাশ! তবে ওই কামড়ায় সফররত মোহনবাগান ফ্যানেরা নিজেদের আসন ছেড়ে দিয়ে ফুটবলারদের বসতে অনুরোধ করে একটা দারুন দৃষ্টান্ত তুলে আনেন ভারতীয় ফুটবলপ্রেমিদের সামনে! কেন এরকম করলেন ইস্টবেঙ্গলের কর্মকতারা? কেন ক্লান্ত শরীরে জাতীয় দলের ফুটবলারদের উঠতে হল জেনারেল কামড়ায়? তারা কি ডার্বি হারের শাস্তি দিলেন ফুটবলারদের? এই প্রশ্নগুলিই এখন ঘুরছে বাংলা ফুটবলপ্রেমীদের মাথায়!